সায়েমা খাতুন

নৃবিজ্ঞানে কৃষক সমাজ এবং বাংলাদেশের কৃষি কাঠামো পড়বার সময় বদরুদ্দিন উমররের লেখা প্রাসঙ্গিক। এছাড়াও দৈনিক বাংলা এবং সাপ্তাহিক বিচিত্রায় আমার আব্বার চাকরীর সুবাদে এই দুই পত্রিকায় ৮০-৯০ এর দশকে হরদম বদরুদ্দিন উমর, নির্মল সেন, আনু মুহাম্মদের লেখা পড়ে পড়ে বড় হয়েছি। সংস্কৃতি প্রকাশনা নিয়মিত গ্রাহক ছিলাম বহু বছর, নিজেও সেখানে লিখতাম ।

উমরের কয়েকটি বইয়ের প্রচ্ছদ। ছবি: ইন্টারনেট থেকে নেয়া।

১৯৯৮ এ জাহাঙ্গীরনগরে ধর্ষণবিরোধী আন্দোলনের সময় ফ্যাসিবাদ বিরোধী জাতীয় কমিটি, লেখক শিবির এর সাথে যোগাযোগ ঘটে এবং বদরুদ্দিন ওমরের কিছু সময়ের সান্নিধ্য লাভের সুযোগ হয়। তাঁর প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব মনে ছাপ ফেলে গেছে । অনেক বিষয়ে তাঁর সাথে আপনি একমত না হতে পারেন, কিন্তু তাঁর চিন্তার মৌলিকতা এবং সাহসকে সমীহ না করে পারবেন না। একটি সময়ের বুদ্ধিজীবীর দায়িত্ব, কর্তব্য এবং সক্রিয়তা যেমনটি হওয়ার কথা তিনি তেমন একজন দৃঢ় সবল চিন্তুক! বাংলাদেশের ইতিহাস, সমাজ, রাজনীতি, সমাজ কাঠামোর মধ্যে অসাম্য ও অন্যায্যতার জায়গাগুলো সম্পর্কে গভীরভাবে তিনি আমাদের আলোকিত করেছেন। তাঁর রচনা এবং সক্রিয় কর্মতৎপরতা আমাদের সামনে শক্তিশালী উদাহরণ হয়ে থাকবে।

উমরের আমার জীবন গ্রন্থের প্রচ্ছদ। ইন্টারনেট থেকে নেয়া।

৮৯ তম জন্মদিনে তাঁর সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘ জীবন কামনা করি।

সায়েমা খাতুন: সহযোগী অধ্যাপক, নৃবিজ্ঞান বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Print Friendly, PDF & Email
0 Shares

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *